1. [email protected] : amzad khan : amzad khan
  2. [email protected] : NilKontho : Anis Khan
  3. [email protected] : Nil Kontho : Nil Kontho
  4. [email protected] : Nilkontho : rahul raj
  5. [email protected] : NilKontho-news :
  6. [email protected] : M D samad : M D samad
  7. [email protected] : NilKontho : shamim islam
  8. [email protected] : Nil Kontho : Nil Kontho
  9. [email protected] : user 2024 : user 2024
  10. [email protected] : Hossin vi : Hossin vi
২০১৬ সবচেয়ে হতাশাজনক হিন্দি সিনেমা | Nilkontho
২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | সোমবার | ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
হোম জাতীয় রাজনীতি অর্থনীতি জেলার খবর আন্তর্জাতিক আইন ও অপরাধ খেলাধুলা বিনোদন স্বাস্থ্য তথ্য ও প্রযুক্তি লাইফষ্টাইল জানা অজানা শিক্ষা ইসলাম
শিরোনাম :
৫০ দিনের মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন: জরুরি বৈঠকে ইরানের মন্ত্রিসভা প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মৃত্যু নিশ্চিত করল ইরান সরকার দেশে ফিরেছেন সেনাপ্রধান সোনার ভ‌রি ছাড়াল এক লাখ সাড়ে ১৯ হাজার মিষ্টির থাপড়াতে চাওয়া নিয়ে মুখ খুললেন-জয় মিশা-ডিপজলকে মূর্খ বললেন নিপুণ! পুলিশ বক্সে আগুন দিলো ব্যাটারিচালিত রিকশাচালকরা কেরুর শ্রমিক-কর্মচারীদের মাঝে ”উৎসবের আমেজ” শেষ হচ্ছে চুয়াডাঙ্গা সদর ও আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাচনের প্রচারণা বান্দরবানে সেনাবাহিনীর অভিযানে ৩ কেএনএফ সদস্য নিহত ওয়াজ শুনে প্রেমিকের সঙ্গে বাড়ি ফেরার পথে ধর্ষণের শিকার তরুণী, থানায় মামলা আশা শিক্ষা কর্মসূচী কর্তৃক অভিভাবক মতবিনিময় সভা জীবননগরে মায়ের বিরুদ্ধে অনৈতিক কাজের অভিযোগ মেয়ের, শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন নিখোঁজ ঝিনাইদহ -৪ আসনের এমপি আনার ভোলার নির্বাচন হবে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য- কমিশনার আহসান হাবিব  আমাকে এত বড় দায়িত্ব দেওয়া হবে জানতাম না: শেখ হাসিনা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার বিরূপ প্রভাব ঠেকাতে আসছে আইন – তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী “হেলমেট ছাড়া জ্বালানি তেল বিক্রি নিষিদ্ধ ঘোষণা” চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় বাইসাইকেল আরোহী নিহত নামাজের সময় তালা আটকে মসজিদে দেওয়া হলো আগুন, নিহত ১১

২০১৬ সবচেয়ে হতাশাজনক হিন্দি সিনেমা

  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৬
  • ৩২ মোট দেখা:

নিউজ ডেস্ক:

ভারতের ২০১৬ সালের সবচেয়ে বাজে ও হতাশাজনক হিন্দি সিনেমার কারণে পরিচালক, অভিনেতা ও অভিনেত্রী খুবই সমালোচিত হয়। তাদের ছবিগুলো বক্স অফিস ব্যবসা সফল্য হয়নি।

শিভায় : শিভায়ের মতো মর্মান্তিক এবং যন্ত্রণাদায়ক অত্যাচারের মধ্য দিয়ে যেতে হয় তাহলে আপনার প্রতি রইল সমবেদনা। আর অজয় দেবগনকেও নিজের চরিত্র বাছাইয়ে আরো সতর্ক হওয়া উচিৎ হতে হবে। সিনেমা, স্ক্রিপ্ট এবং পরিচালকের ক্ষেত্রেও তাকে হুঁশিয়ার হতে হবে।

মহেঞ্জোদাড়ো : এটি সম্ভবত এই বছরের সবচেয়ে বড় হতাশা ছবি। সিনেমাটি আশুতোষ গোয়াড়িকরের ওপর আমাদের বিশ্বাসে চিড় ধরিয়ে দিয়েছে। আর এ থেকে ভারতীয় ভিএফএক্স এর দুর্দশাটিও দেখা গেল। আমরা আশা করব পুজা হেজও তার ক্যারিয়ার পরিবর্তন করবেন। তার বুঝা উচিৎ ছিল এটা তার পুরো জীবনের জন্যই একটি অভিষেক হতে যাচ্ছিল। আর হৃতিক রোশনকেও তিনি যা বেশি ভালো করেন সেকাজেই ফিরে যাওয়া উচিৎ নাচা, দেখতে সুন্দর লাগা এবং একটি সিনেমার অন্তত ৭০ ভাগ জুড়ে খালি গায়ে থাকা।

বার বার দেখো : এই সিনেমাটি কেউই দুবার দেখতে চাইবে না। আর অনুভব পাল এই ধরনের গল্প লিখতে পারেন তা কল্পনা করাও কঠিন।

ইশক ক্লিক : আপনি যদি সিনেমাটির নাম শুনে থাকেন তাহলে আপনি নিশ্চিতভাবেই একজন সিনেমাখোর। অথবা আপনি এখন বেকার। ফলে বসে বসে শুধু সিনেমা দেখেন। আপনি যদি এটি দেখে থাকেন তাহলে আপনাকে আমি মদ কিনে দেব খাওয়ার জন্য।

তেরা সুরুর : এতে অভিনয় করেছেন হিমেশ রেশামিয়া। সিনেমাটি দেখার পর প্রশ্ন জাগবে, নিজেকে নিয়ে সিনেমা বানিয়ে অপচয় করার জন্য টাকা কোথায় পান তিনি।

আজহার : সবাই যখন ভাবছিল ইমরান হাশমি হয়তো কোনো খারাপ সিনেমা করতে পারেন না ঠিক সে সময়ই তিনি আজহার এর মতো একটি হাস্যকর ইনিংস খেললেন। কিছু্ সিনেমাটিকে হিট করতে পারেনি- পঙ্কিল আখ্যান, অপ্রয়োজনীয় রম্য, তথ্যগত ত্রুটি এবং নারগিস ফাখরির হাঁসের মতো ঠোঁট। এটি বানানোর পর একতা কাপুর এমনকি কিছুদিনের জন্য সিনেমা বানানো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তও নেন।

ইশক ফরএভার : মডেলদের পরিষ্কার বুঝা উচিৎ যে, মডেলিং অ্যাসাইনমেন্ট ফুরিয়ে আসলে অভিনয়ই তাদের ক্যারিয়ারের পরবর্তী ধাপ নয়। এর অভিনয় এতটাই বাজে যে ১৫ মিনিটেই অরুচি ধরে যাবে। আর এর নামটিও প্রতিশ্রুতিশীল হয়নি।

মাস্তিজাদে : একতা কাপুর ছাড়া অন্যরাও তুষার কাপুরকে সিনেমায় নেন। প্রিতিশ নন্দী এই অখাদ্যটি বানিয়েছেন দু্ই যমজ বোনের গল্প নিয়ে। যারা যৌনাসক্তদের জন্য একটি পুনর্বাসন কেন্দ্র চালান। ভীর দাসও এতে অভিনয় করেছেন। সানি লিওন এতে অভিনয় করেছেন ডাবল রোলে।

লাভ গেমস : এতেও মডেলের অভিনয় অভিষেক হয়েছে। বিক্রম ভাটের গতানুগতিক ধাঁচের (যৌনতা-রক্ত-অর্থ) একটি সিনেমা এটি। এক অনেকটা একটি সফট পর্নও বলা চলে। তবে এর যৌনতা সংক্রান্ত দৃশ্যগুলোতে কলাকুশলীদের অভিনয় একদমই ভালো হয়নি। এমন অনীহা নিয়ে কাউকে কখনো যৌন দৃশ্যে অভিনয় করতে দেখা যায়নি।

কেয়া কুল হ্যায় হাম ৩ : এই নামে তিন তিনটি সিনেমা বানানো বেশ তাজ্জব করার মতো একটি বিষয়। আমেরিকান পাই এর নকল করা সিনেমা পরপর কতবার ভালো লাগে? অথবা এমনও হতে পারে একতা কাপুর তার শিশু ভাইয়ের জন্য কর্মের সংস্থান করছেন। কিন্তু একতার জানা উচিৎ কোনো সিনেমায় যদি তুষার কাপুর থাকেন তাহলে শুধু এই একটি কারণেই সিনেমাটি থেকে দূরে থাকা উচিৎ।

এই পোস্ট শেয়ার করুন:

এই বিভাগের আরো খবর

নামাযের সময়

সেহরির শেষ সময় - ভোর ৩:৫৩
ইফতার শুরু - সন্ধ্যা ৬:৪৬
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫৮
  • ১২:০৪
  • ৪:৩৯
  • ৬:৪৬
  • ৮:০৯
  • ৫:১৯

বিগত মাসের খবরগুলি

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১