1. [email protected] : amzad khan : amzad khan
  2. [email protected] : NilKontho : Anis Khan
  3. [email protected] : Nil Kontho : Nil Kontho
  4. [email protected] : Nilkontho : rahul raj
  5. [email protected] : NilKontho-news :
  6. [email protected] : M D samad : M D samad
  7. [email protected] : NilKontho : shamim islam
  8. [email protected] : Nil Kontho : Nil Kontho
  9. [email protected] : user 2024 : user 2024
  10. [email protected] : Hossin vi : Hossin vi
মামলাই নেই, অথচ পরোয়ানায় গ্রেফতার! | Nilkontho
২৪শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | সোমবার | ১০ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
হোম জাতীয় রাজনীতি অর্থনীতি জেলার খবর আন্তর্জাতিক আইন ও অপরাধ খেলাধুলা বিনোদন স্বাস্থ্য তথ্য ও প্রযুক্তি লাইফষ্টাইল জানা অজানা শিক্ষা ইসলাম
শিরোনাম :
মেহেরপুরে আরমান বীজ ভান্ডারকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আ.লীগের সবচেয়ে বড় অর্জন স্বাধীনতা: দামুড়হুদার মনজু আর্থিক খাত শক্তিশালী করতে ৫৮৭৫ কোটি টাকা দিলো বিশ্বব্যাংক কোরাল মাছের প্রজনন পদ্ধতি সংসদে ‘মুজিব ও স্বাধীনতা’র উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী আমাকে না জানিয়ে কেন দুই দেশ পানি নিয়ে বৈঠক : মমতা চীনকে হারিয়ে আবারও চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের যুবারা প্রেম নিয়ে যা বললেন মিথিলা শেখ হাসিনার অপেক্ষায় চীন শহীদ এম. মনসুর আলী মেডিকেল হাসপাতালের সামনে দূর্ঘটনা এড়াতে বসানো হচ্ছে স্পিড ব্রেকার আলোচিত ‘জল্লাদ’ শাহজাহান ভূঁইয়া মারা গেছেন। সিরাজগঞ্জে বালুবাহী ট্রাকের চাকায় পৃষ্ট হয়ে এক বৃদ্ধের মৃত্যু – ট্রাক জব্দ সিরাজগঞ্জে আ.লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা সুমন রহমানের নেতৃত্বে বিশাল মিছিল ১১০তম চাবির বাহক কে হবেন কাবাঘরের জুলাইয়ে বাড়তে পারে ডেঙ্গুর প্রকোপ আলমডাঙ্গায় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু ফিলিস্তিনি নাগরিককে গাড়ির সাথে বেঁধে নির্যাতন – ইসরায়েলি বাহিনী জম্মু ও কাশ্মীরের উরিতে ভারতীয় সেনা অভিযানে দুই সন্ত্রাসী নিহত এনবিআর কর্মকর্তা মতিউরের বিরুদ্ধে তদন্তে নেমেছে দুদক আমরা কারও উসকানিতে পা দেব না, মিয়ানমার ইস্যুতে নতুন সেনাপ্রধান

মামলাই নেই, অথচ পরোয়ানায় গ্রেফতার!

  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০১৭
  • ২০ মোট দেখা:

নিউজ ডেস্ক:

ভুয়া গ্রেফতারি পরোয়ানায় আটক, কারাবাস ও হয়রানির সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। থানায় নেই কোন মামলা, তবুও নির্দিষ্ট আদালতের সিল সম্বলিত গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে হাজির পুলিশ! ধরে নিয়ে আসা হচ্ছে থানায়। শুধু তাই নয়, এমন পরোয়ানার ভিত্তিতে হাজতবাসও ঘটছে অহরহ। সম্প্রতি এমন কয়েকটি ভুয়া পরোয়ানায় আসামি খালাসের ঘটনায় বিষয়টি সামনে আসে।

ঢাকার আদালতের একটি পরোয়ানার কথা বলে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের উত্তর হাজিপুরের ক্ষুদ্র ব‌্যবসায়ী মাহবুবুর রহমানকে সম্প্রতি ধরে আনে পুলিশ। তাকে বলা হয় তিনি ২০১১ সালে রাজধানীর তুরাগ থানায় দায়ের করা বিশেষ ক্ষমতা আইনের একটি মামলার আসামি। গত ৬ ডিসেম্বর গ্রেফতারের পর ১২ ডিসেম্বরে নোয়াখালীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালত থেকে হাজতি পরোয়ানাসহ ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয় মাহবুবকে। এরপর ১৭ জানুয়ারি ঢাকার ষষ্ঠ যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ আদালতে আদালতে তার জামিন চেয়ে আবেদন করা হয়। এই আদালতের পরোয়ানার কথা বলেই গ্রেফতার করা হয়েছিল তাকে।

মাহবুবের আইনজীবী তাহেরুল ইসলাম তৌহিদ ও খায়রুল ইসলাম বলেন, জামিনের আবেদন উপস্থাপনের পর দেখা যায় ওই ক্রমিকের কোনো মামলাই এই আদালতে বিচারাধীন নেই। বিচারক রেহেনা আক্তার বিষয়টি বুঝতে পেরে নির্দোষ মাহবুবকে ভুয়া অভিযোগ ও পরোয়ানার চক্কর থেকে মুক্তি দেন।

একই বিচারক গত বছরের ২ নভেম্বর ভুয়া পরোয়ানায় আটক চাঁদপুরের কচুয়ার দৌলতপুরের আকমত আলীকে মুক্তি দিয়েছিলেন।আদালতের পেশকার হিমেল করিম বলেন, আমাদের আদালতের সিলের সঙ্গে এসব ভুয়া পরোয়ানার সিলের কোনো মিল নেই।

একইভাবে ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসে কবি ও গবেষক আবদেল মাননানকে গ্রেফতারে পল্টন মডেল থানার উপ-পরিদর্শক কাজী আবদুল্লাহ আল মাহমুদ একটি ফৌজদারি মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে হাজির হন মাননানের ভগ্নীপতি আব্দুল লতিফের পুরানা পল্টনের বাসায়। মাননান তখন বাসায় ছিলেন না। এরপর বার বার লতিফের বাসায় আরও কয়েকজন পুলিশ সদস্য যান। মাননানের স্বজনরা পরোয়ানা দেখতে চাইলে তা দেখানো হয়নি।

মাননান বিষয়টি একটি সংবাদ মাধ্যমে জানালে এসআই মাহমুদের কাছে পরোয়ানার মামলার নম্বর ও আদালতের নাম জানতে চাওয়া হয়। টেলিফোনে ‘বলা যাবে না’ বলে প্রথমে এড়িয়ে যান ওই পুলিশ কর্মকর্তা। পরে জানান, মামলার নম্বর সিআর ৪১৮/২০১২, ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হাসিবুল হকের আদালতের পরোয়ানা।

ওই আদালতের মামলার নিবন্ধন খাতা খুলে দেখা যায়, ওই সিরিয়ালের মামলাটি একটি যৌতুকের মামলা। আর আসামির মধ‌্যে আবদেল মাননান নামে কেউ নেই। বিষয়টি তখন ঢাকার মহানগর পুলিশের অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের অতিরিক্ত উপ কমিশনার মোহাম্মদ আনিসুর রহমানকে জানানো হলে তিনি খোঁজ নিয়ে জানান, এটি একটি ভুয়া পরোয়ানা।

তখন ওই আদালতের পরোয়ানা জারিকারক মাইনুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পরোয়ানায় ম্যাজিস্ট্রেট হাসিবুল হকের যে স্বাক্ষর ও সিল ব্যবহার করা হয়েছে, তা জাল।

একইভাবে ২০১০ সালে অপরাধী না হয়েও ভুয়া পরোয়ানায় গ্রেফতার হয়ে ১৬ দিন ধরে কারাগারে থাকতে হয়েছিল কুমিল্লার চান্দিনার সাকুচ গ্রামের কৃষক আবুল হাশেমকে।ভুয়া পরোয়ানার বিষয়টি ধরা পড়ার পর ঢাকার ৪ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব‌্যুনালের বিচারক মো. রেজাউল ইসলাম ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক হাশেমকে মুক্তি দেন।

তখন অনুসন্ধানে দেখা যায়, তেজগাঁও থানার ওই মামলাটি দুর্নীতি দমন ব্যুরোর (বিলুপ্ত) দায়ের করা একটি দুর্নীতির মামলা। এতে হাশেম নামে কোনো আসামি নেই।

ভুক্তভোগীরা বলছেন, প্রতিনিয়ত এমন ভুয়া পরোয়ানার মুখোমুখি হয়ে হয়রানি হতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। দালালদের যোগসাজশে আদালত কর্মচারী ও পুলিশ সদস‌্যরা মিলে এসব করছে বলে অভিযোগ উঠলেও জড়িতদের বিরুদ্ধে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছে না।

এই পোস্ট শেয়ার করুন:

এই বিভাগের আরো খবর

নামাযের সময়

সেহরির শেষ সময় - ভোর ৩:৪৭
ইফতার শুরু - সন্ধ্যা ৬:৫৮
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫২
  • ১২:০৯
  • ৪:৪৬
  • ৬:৫৮
  • ৮:২৪
  • ৫:১৭

বিগত মাসের খবরগুলি

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০