1. [email protected] : amzad khan : amzad khan
  2. [email protected] : NilKontho : Anis Khan
  3. [email protected] : Nil Kontho : Nil Kontho
  4. [email protected] : Nilkontho : rahul raj
  5. [email protected] : NilKontho-news :
  6. [email protected] : M D samad : M D samad
  7. [email protected] : NilKontho : shamim islam
  8. [email protected] : Nil Kontho : Nil Kontho
  9. [email protected] : user 2024 : user 2024
  10. [email protected] : Hossin vi : Hossin vi
পলাশবাড়ীতে বন্যার আশ্রয়ন কেন্দ্র ও সরকারি স্কুলের রাস্তা বিলিন ও আবাদী জমিতে ধস | Nilkontho
২৪শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | শুক্রবার | ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
হোম জাতীয় রাজনীতি অর্থনীতি জেলার খবর আন্তর্জাতিক আইন ও অপরাধ খেলাধুলা বিনোদন স্বাস্থ্য তথ্য ও প্রযুক্তি লাইফষ্টাইল জানা অজানা শিক্ষা ইসলাম
শিরোনাম :
সিরাজগঞ্জে কবির বিন আনোয়ার এর জন্মদিন পালিত চুয়াডাঙ্গায় সড়কে ত্রিমুখী সংঘর্ষে যুবক নিহত গাংনী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জামানত হারাচ্ছেন ৬ প্রার্থী ৫ কোটি টাকার চুক্তিতে খুন, ট্রলিব্যাগে সরানো হয় মরদেহ প্রধানমন্ত্রী শোক জানালেন এমপি আনোয়ারুল আজিমের মৃত্যুতে বাড্ডার সেই কারখানা থেকে ৬৫টি হাতবোমা উদ্ধার, আটক ৩ হাসপাতালে ভর্তি শাহরুখ খান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই পদে চাকরি বাংলাদেশকে হারিয়ে ইতিহাস যুক্তরাষ্ট্রের ভারতে নিখোঁজ বাংলাদেশি সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজিম আনারের মরদেহ উদ্ধার নির্বাচনের আইন-বিধি রঙ্ঘন করায়-২১ জন আটক দিল্লির তাপমাত্রা ৪৭.৭ ডিগ্রি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ চুয়াডাঙ্গায় দ্বিতীয় ধাপে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যারা বিজয়ী হলেন,,,, বীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যারা বিজয়ী হয়েছেন ৫০ দিনের মধ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন: জরুরি বৈঠকে ইরানের মন্ত্রিসভা প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মৃত্যু নিশ্চিত করল ইরান সরকার দেশে ফিরেছেন সেনাপ্রধান সোনার ভ‌রি ছাড়াল এক লাখ সাড়ে ১৯ হাজার মিষ্টির থাপড়াতে চাওয়া নিয়ে মুখ খুললেন-জয় মিশা-ডিপজলকে মূর্খ বললেন নিপুণ!

পলাশবাড়ীতে বন্যার আশ্রয়ন কেন্দ্র ও সরকারি স্কুলের রাস্তা বিলিন ও আবাদী জমিতে ধস

  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৪৭ মোট দেখা:

জেলা প্রতিনিধিঃ বায়েজীদ (পলাশবাড়ী) –

অবৈধভাবে একাধিক স্যালোমেশিন দিয়ে বালু তোলার ফলে গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলা
কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের সগুণা খত্রিয়পাড়া মন্দির পিছনে সগুণা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের যাওয়া রাস্তা
অনেক আগেই ধসে গেছে । প্রায় ২০ বিঘা জমি বালু খেকো দের পেটে যাওয়ায় উক্ত এলাকার আশপাশে
আবাদী জমি দেবে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে ।

যেখানে পালন করা হয়েছে বালু উত্তোলন উৎসব । ভাঙ্গন পূরীতে পরিণত হয়েছে আবাদী জমি ও
একমাত্র বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তাটি।

নিজস্ব প্রতিবেদন

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা জানান,উপজেলার বিভিন্ন নেতানেত্রীর পরিচয় ও ক্ষমতার দাপট
আর গণমাধ্যমকর্মীদের মাসোহার ও অন্যান্য সংশ্লিষ্টদের বিশেষ ভাবে ম্যানেজ করে চলে এই
অবৈধ কার্যক্রম। বালু উত্তোলনের ফলে শুধু জমিতেই ধস নয় সগুণা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে
যাওয়ার রাস্তাটি দুই পাশে অবসৃষ্ট অংশ থাকলেও মাঝখানে বিলিন হয়ে গেছে। এছাড়া নদী পাড় গুলো ভংঙ্কর আকারে ভেঙ্গে যাচ্ছে। না দেখে ভুমি অফিস না দেখে পানি উন্নয়ন বোর্ড। বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের দোহাই দিয়ে একটি চক্র কয়েক মাস হলো দুটি স্যালো মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলনের মহাযোজ্ঞ চলমান রেখেছেন।

তারা আরো জানান, স্থানীয় বালু খেকো রহিম উদ্দীন ও দুলাল গত কয়েকমাস হলো সকলকে ম্যানেজ করে বালু উত্তোলন ও বিক্রি এবং মওজুদ করে রেখেছেন। অপরদিকে নদী পারের জমির মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে কয়েকটি ট্রাক্টর, এছাড়াও নদীর মাঝে দুটি স্যালো দিয়ে ড্রেজিং করে একই স্থানে একশত গজের মধ্যে দুটি বডিং দিয়ে অবৈধ বালু উত্তোলন যজ্ঞ চলমান রেখেছেন এরশাদ ও গোলাম মোস্তফা,লালু ,টমাস ও মিল্লাত সহ কয়েকটি গং।
প্রভাবশালি এসব বালু উত্তোলন কারীদের ভয়ে স্থানীয় সচেতন মানুষ কোন প্রতিবাদ করতে পারে না
বা কাউকে অভিযোগ করে না। তাদের অবৈধ এসব বালু ও মাটি উত্তোলন ও পরিবহনে ফলে বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধ গুলো হুমকির মুখে রয়েছে।

বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধের অনেক স্থানে ব্যাপক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পরেও কারো কোন দায়িত্ব নেই এ অবৈধ কার্যক্রম দিব্বি চলছে। অপর দিকে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ ও প্রশাসনের পক্ষ হতে নিরব ভূমিকা পালন করায় এই এলাকাটি ধবংস পূরীতে পরিণত হয়েছে। উপজেলা একটি বন্যার আশ্রয়ন কেন্দ্র যাহা সগুণা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হিসাবে পরিচিত এ গ্রামে যাতাআতের রাস্তাটি বালু খেকোদের পেটে যাওয়ার পরেও প্রশাসনের এ নিরবতা কিসের আলামত। উক্ত এলাকার রাস্তা ও আবাদী জমি ধংসের সাথে ও সগুণা মৌজার অর্ধশত বিঘা জমি হুমকির মুখে
ফেলার সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা দ্রুত প্রয়োজন।

এই পোস্ট শেয়ার করুন:

এই বিভাগের আরো খবর

নামাযের সময়

সেহরির শেষ সময় - ভোর ৩:৫৩
ইফতার শুরু - সন্ধ্যা ৬:৪৬
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫৮
  • ১২:০৪
  • ৪:৩৯
  • ৬:৪৬
  • ৮:০৯
  • ৫:১৯

বিগত মাসের খবরগুলি

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১