1. [email protected] : amzad khan : amzad khan
  2. [email protected] : NilKontho : Anis Khan
  3. [email protected] : Nil Kontho : Nil Kontho
  4. [email protected] : Nilkontho : rahul raj
  5. [email protected] : NilKontho-news :
  6. [email protected] : M D samad : M D samad
  7. [email protected] : NilKontho : shamim islam
  8. [email protected] : Nil Kontho : Nil Kontho
  9. [email protected] : user 2024 : user 2024
  10. [email protected] : Hossin vi : Hossin vi
কয়রায় জোড়াতালি দিয়েও ঠেকানো গেল না বাঁধটি, ১০ গ্রাম প্লাবিত | Nilkontho
২৮শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | মঙ্গলবার | ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
হোম জাতীয় রাজনীতি অর্থনীতি জেলার খবর আন্তর্জাতিক আইন ও অপরাধ খেলাধুলা বিনোদন স্বাস্থ্য তথ্য ও প্রযুক্তি লাইফষ্টাইল জানা অজানা শিক্ষা ইসলাম
শিরোনাম :
কাজিপুর গোয়ালবাথান উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগে দুর্নীতি যে ভুলে পুরুষরা কিডনিতে পাথরের সমস্যায় বেশি ভোগেন ঘূর্ণিঝড় রেমাল: মোংলায় ৭নং বিপদ সংকেত কাজিপুরে গোয়ালবাথান উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা ছাড়াই নিয়োগ চুয়াডাঙ্গায় পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু দর্শনা-ভাঙ্গা রুটে নতুন ট্রেন, বাঁচবে সময় কমবে ভোগান্তি প্রবাসীর ঘরে ঢুকে মা ও স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে আহত যশোরের শার্শায় শালিসী বৈঠকে যুবককে পিটিয়ে হত্যা সিরাজগঞ্জে ছাত্রনেতা রাকিবের উদ্যোগে (টিপিবি) সেলাই মেশিন বিতরন ঈদকে সামনে রেখে অজ্ঞান পার্টির বেপরোয়া-টার্গেট গরু ব্যবসায়ীরা। ঢাকাগামী ট্রেন সেবা চালু রাখতে মানববন্ধন। চুয়াডাঙ্গায় আবারো স‌র্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড ৪ বছর কারাভোগ শেষে দেশে ফিরল ভারতীয় নাগরিক। ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণ,চাচা-আটক বেনজীরের সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ ঈদযাত্রার ট্রেনের টিকিট বিক্রির দিনক্ষণ নির্ধারণ সিরাজগঞ্জে কবির বিন আনোয়ার এর জন্মদিন পালিত চুয়াডাঙ্গায় সড়কে ত্রিমুখী সংঘর্ষে যুবক নিহত গাংনী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জামানত হারাচ্ছেন ৬ প্রার্থী ৫ কোটি টাকার চুক্তিতে খুন, ট্রলিব্যাগে সরানো হয় মরদেহ

কয়রায় জোড়াতালি দিয়েও ঠেকানো গেল না বাঁধটি, ১০ গ্রাম প্লাবিত

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৪ আগস্ট, ২০২২
  • ৮১ মোট দেখা:

খুলনার কয়রা উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের চরামুখা গ্রামের খালের গোড়া নামক স্থানে কপোতাক্ষ নদের বেড়িবাঁধ আবারও ভেঙে গেছে। জোড়াতালি দিয়েও বাঁধটির শেষ রক্ষা হলো না। আজ রোববার দুপুরে উচ্চ জোয়ারে বাঁধটি ভেঙে যায়। এতে ইউনিয়নের চারটি ওয়ার্ডে অন্তত ১০টি গ্রাম সাগরের লোনাপানিতে প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন অন্তত ১৫ হাজার মানুষ।

গত ১৭ জুলাই ভোরে বাঁধের প্রায় দেড় শ মিটারের মতো ধসে নদীতে বিলীন হয়। দুই দিন পর হাজার হাজার মানুষের সম্মিলিত চেষ্টায় ভাঙা স্থানে রিংবাঁধ দিয়ে পানি আটকানো সম্ভব হয়। গতকাল শনিবার দুপুরে উচ্চ জোয়ারে ওই রিংবাঁধের ৫০ ফুটের মতো ভেঙে গিয়েছিল। তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয় কয়েক শ মানুষের চেষ্টায় তা মেরামত করা হয়। তবে নদীর পানিতে তলিয়ে গিয়েছিল শতাধিক মাছের ঘের। সেই বাঁধটি আজ আবার ১০০ মিটারের মতো ভেঙে গেছে।

বারবার একই স্থানে বাঁধ ভেঙে যাওয়ার পেছনে পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) গাফিলতিকেই দুষছেন স্থানীয় লোকজন। তাঁদের দাবি, এক মাস আগে রিংবাঁধ দেওয়া হলেও সেটি রক্ষণাবেক্ষণ বা মজবুত করার কোনো ব্যবস্থা নেয়নি পাউবো। এ কারণে দুর্বল বাঁধ বারবার ভেঙে যাচ্ছে।

বাঁধ ভেঙে চরামুখা গ্রামের রফিকুল ইসলামের বাড়ির মধ্যে পানি উঠেছে। ডুবে গেছে পুকুরও। একটি ঘরের মধ্যে পানি ঢুকেছে। রফিকুল ইসলাম বলেন, আশপাশের সবার বাড়িতেই কমবেশি পানি উঠেছে। মানুষ গরু-ছাগল উঁচু বাঁধের ওপর রেখে এসেছেন। রাতের জোয়ারে আবার পানি প্রবেশ করে নতুন নতুন অনেক এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

দক্ষিণ বেদকাশী এলাকার স্বাধীন সমাজকল্যাণ যুব সংস্থার সভাপতি মো. আবু সাঈদ খান বলেন, গত ১৭ জুলাই বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় অন্তত ১০টি গ্রামে পানি প্রবেশ করেছিল। দুই দিন পর রিংবাঁধ দিয়ে পানি আটকানোর পর ওই ইউনিয়নের মানুষের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফেরে। এক মাসে অনেকটা ক্ষতি কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছিলেন সবাই। কিন্তু আবার ভেঙে যাওয়ায় সব বরবাদ হয়ে গেছে। তিনি আরও বলেন, বাঁধ না ভাঙলে পাউবোর ঘুম ভাঙে না। ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ মেরামত না করে ভেঙে যাওয়ার পর প্রতিষ্ঠানটির তোড়জোড় শুরু হয়। ততক্ষণে নিঃস্ব হয় সাধারণ মানুষ।

দক্ষিণ বেদকাশী ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ওসমান গনি বলেন, গতকাল দুপুরের জোয়ারে বাঁধ ভেঙে যাওয়ার পর সবার চেষ্টায় আবার তা মেরামত করা হয়। কিন্তু আজ জোয়ারের পানির উচ্চতা এতটাই বেশি ছিল যে ওই বাঁধ আর টিকতে পারেনি। প্রায় ১০০ মিটারের মতো ভেঙে বিলীন হয়ে গেছে। জুলাই মাসে ভেঙে যাওয়ার পর বাঁধ মেরামতে কোনো উদ্যোগ নেয়নি পাউবো। যদি রিংবাঁধে কাজ করা হতো, তাহলে এমনটি হতো না। তিনি আরও বলেন, বাঁধ ভেঙে আজ পানি ঢুকে দক্ষিণ বেদকাশী, চরামুখা, হলুদবুনিয়া, বিনাপানি, পদ্মপুকুরসহ ১০টির বেশি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। প্রায় ১৫ হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। কাল সোমবার সকালে আবার সবাইকে নিয়ে বাঁধ মেরামতের পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

ওই এলাকা পড়েছে পাউবোর সাতক্ষীরা বিভাগ-২–এর আওতায়। জানতে চাইলে বিভাগের পরিচলন ও রক্ষণাবেক্ষণের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শাহনেওয়াজ তালুকদার বলেন, প্রথম বাঁধ ভেঙে যাওয়ার পর রিংবাঁধ দেওয়া হয়। কিন্তু সেটি মজবুত করা যায়নি। সেখানে মাটির মান খুব বেশি ভালো নয়। তা ছাড়া জোয়ার-ভাটার কারণে বেশি সময় কাজ করা যায় না। এ কারণেই মূলত বাঁধটি বারবার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। আপাতত পানি প্রবেশ বন্ধ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এরপর রিংবাঁধ মজবুতের চেষ্টা করা হবে।

এই পোস্ট শেয়ার করুন:

এই বিভাগের আরো খবর

নামাযের সময়

সেহরির শেষ সময় - ভোর ৩:৫১
ইফতার শুরু - সন্ধ্যা ৬:৪৮
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫৬
  • ১২:০৫
  • ৪:৪০
  • ৬:৪৮
  • ৮:১২
  • ৫:১৮

বিগত মাসের খবরগুলি

শুক্র শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১